অনলাইনে ইনকাম বা Online Income করার ৫ টি উপায় Best in 2022

অনলাইনে ইনকাম বা Online Income করার ৫ টি উপায়

বর্তমান সময়ে অনলাইনে আয় ও অনলাইনে ইনকাম বা Online Income করার জন্য আমরা অনেক বেশী চেষ্টা করে থাকি। সরকারি চাকরির সমস্যার কারণে অনেক তরুণ যুবক ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করে থাকে।

বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং কাজের মাধ্যমে আমাদের দেশে অনেকেই অর্থোপার্জন করে থাকে। যাদের একটি বড় অংশ কনটেন্ট রাইটিং,  ডিজিটাল মার্কেটিং,  গুগল এডসেন্স,  ওয়েব ডেভেলপমেন্ট,  গ্রাফিক্স ডিজাইন ইত্যাদি কাজের মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করে থাকে। 

 আপওয়ার্ক এবং ফাইবার মার্কেটপ্লেসগুলোতে অনেক বেশি কাজ করে থাকে বর্তমান সময়ে আমাদের দেশের তরুণ তরুণীরা। অনেকেই আছে ভালো ট্রেনিং সেন্টারের মাধ্যমে কাজ শিখে তারা বর্তমান সময়ে ফ্রিলান্সিং পেশায় নিয়োজিত।

ফ্রিল্যান্সিং পেশা হিসেবে ধরা হয়ে থাকে। এর মাধ্যমে আপনি অনেক বেশি অর্থ উপার্জন করতে পারবেন যার কারণে অনেকেই বর্তমানে এ পেশাতে আগ্রহী।

আজকের আর্টিকেলে আমি অনলাইনে ইনকাম করার 5 টি উপায় সম্পর্কে তুলে ধরব। আশা করি আপনি বুঝতে পারবেন কোন পাঁচটি কাজের মাধ্যমে আপনি অনলাইনে আয় করতে পারবেন অনেক সহজেই।

১.  সার্ভে কাজের মাধ্যমে অনলাইনে ইনকাম।

২.  কন্টেন্ট রাইটিং এর মাধ্যমে অনলাইনে আয়।

৪.  ওয়েবসাইট তৈরির মাধ্যমে অনলাইনে আয়।

৫.  গ্রাফিক্স ডিজাইন এর মাধ্যমে অনলাইনে আয়।

৬.  ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর মাধ্যমে অনলাইনে আয়।

উপরোক্ত পাঁচটি বিষয় ছাড়াও আরো অনেকগুলো কাজের মাধ্যমে আপনি অনলাইনে আয় করতে পারবেন। 

এবার আমি নিচে ওপরের পাঁচটি বিষয় সম্পর্কে সামান্য বর্ণনা করার চেষ্টা করব। আশা করি বুঝতে পারবেন অনলাইনে ইনকাম করার জন্য উপরের পাঁচটি বিষয় গুলো কতটা গুরুত্বপূর্ণ এবং এছাড়াও আরো অনেকগুলো পদ্ধতি আছে যেগুলো হয়তো বা অন্য একটি আর্টিকেলে বলার চেষ্টা করব।

১.  সার্ভে কাজের মাধ্যমে অনলাইনে ইনকাম

অনলাইনে ইনকাম করার জন্য সার্ভে কাজ অন্যতম একটি উপায়। যদিও কাজটি অনলাইনে আমেরিকানদের জন্য তার পরেও বাংলাদেশসহ উপমহাদেশের বিভিন্ন দেশের মানুষগুলো আইপি ব্যবহার করার মাধ্যমে কাজটি করে থাকে। অনলাইন অনেকগুলো সহজ ইনকাম করার উপায় এর মধ্যে এই কাজটি অন্যতম।

এই কাজের মাধ্যমে আপনি প্রতিদিন 10 থেকে 20 ডলার অনেক সহজেই আয় করতে পারবেন। তবে এজন্য অবশ্যই আপনাকে একটি ভালো মানের প্রক্সি সার্ভার ব্যবহার করতে হবে। এবং আপনার ইন্টারনেট স্পিড টা অনেক বেশি থাকতে হবে। 

ভালো মানের একটি কম্পিউটার দিয়ে আপনি ইচ্ছা করলে নিজ ঘরে বসেই অনলাইনে ইনকাম করতে পারবেন অনেক সহজেই। এজন্য আপনাকে অনেক বেশি পরিশ্রম করতে হবে না এবং আপনি নিজের বাসায় থেকেই ইউএসএ ব্যাংকের মাধ্যমে টাকা নিয়ে আসতে পারবেন।

অনলাইনে ইনকাম

২.  কন্টেন্ট রাইটিং এর মাধ্যমে অনলাইনে আয়

ওয়েব ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট কাজের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি কাজ হচ্ছে কনটেন্ট রাইটিং। আপনি গুগল এডসেন্স অথবা অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে যদি অর্থ উপার্জন করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে কনটেন্ট রাইটিং সম্পর্কে ভালো একটা ধারণা রাখতে হবে। অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের জন্য আপনাকে অবশ্যই বিভিন্ন পণ্যের রিভিউ সুন্দর করে লিখতে হবে। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর জন্য রিভিযও লিখার অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি উপাদান। যেটার জন্য আপনাকে পণ্যটি সম্পর্কে খুব ভালো ধারণা রাখতে হবে। অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের জন্য আপনি খুব ভালো মানের কিছু পণ্য নির্বাচন করে একটি ওয়েবসাইট তৈরির মাধ্যমে নির্মিত আয় করতে পারবেন।

 

৩.  ওয়েবসাইট তৈরির মাধ্যমে অনলাইনে আয়

অনলাইন ইনকাম করার জন্য আরও একটি সহজ উপায় হচ্ছে ওয়েবসাইট তৈরি করার মাধ্যমে অনলাইনে আয় করা। আমাদের দেশের অনেক ফ্রিল্যান্সার আছেন যারা আপওয়ার্ক এবং ফাইবার মার্কেটপ্লেস গুলোতে ওয়েবসাইট তৈরি করার মাধ্যমে অনলাইনে আয় করে থাকেন। এখানে আপনার দক্ষতা এবং স্কিল অনেক গুরুত্বপূর্ণ। 

আমাদের দেশে ওয়েবসাইট সাধারণত দুই ভাবে তৈরি করা হয়ে থাকে। প্রথমটি হল ব্লগার ওয়েবসাইট তৈরি যেখানে গুগোল নিজেই হস্টিং ফ্রী দিয়ে থাকেন। দ্বিতীয়টি হলো ওয়ার্ডপ্রেস এর মাধ্যমে ওয়েবসাইট তৈরি করা। বর্তমান সময়ে পুরো পৃথিবীর 70 ভাগ ওয়েবসাইটি ওয়ার্ডপ্রেস এর মাধ্যমে তৈরি করা হয়ে থাকে। 

ওয়াডপ্রেস এর মাধ্যমে ওয়েবসাইট তৈরি করার বেশ কিছু সুবিধা রয়েছে যার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে সিকিউরিটি সুবিধা। ব্লগার ওয়েবসাইটে অনেক সুবিধা বেশি তবে বর্তমানে কাস্টমাইজেশনের দিক থেকে বিবেচনা করলে ওয়ার্ডপ্রেস অন্যতম একটি প্ল্যাটফর্ম। আপনি যদি ওয়ার্ডপ্রেস এর কাজ গুলো ভালো মত করতে পারেন তাহলে খুব সহজেই অনলাইনে ইনকাম করতে পারবেন। ফাইবারে বিভিন্ন ধরনের কেক তৈরি করার মাধ্যমে আপনি অনেক সহজেই ওয়ার্ডপ্রেস সাইট তৈরি করে দিয়ে কিছু অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। 

এজন্য আপনাকে শুধুমাত্র ওয়াডপ্রেস সম্পর্কে ভালো ধারণা রাখার পাশাপাশি ওয়াডপ্রেস কিভাবে ইন্সটল করতে হয় এবং কিভাবে সেটআপ করতে হয় এই সমস্ত বিষয় গুলো আপনাকে দক্ষতা অর্জন করে রাখতে হবে। এছাড়াও আমাদের দেশে বিভিন্ন কোম্পানি তাদের নামে ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসগুলোতে কে ওয়েব ডেভলপার করে থাকে। আপনি চাইলে আপনার নামের মাধ্যমে একটি পোর্টফোলিও তৈরি করেও সে সমস্ত সাইটগুলোতে মার্কেটিং করতে পারবেন। 

এটি অনেক সহজ এবং অনেক সহজেই আপনাকে কাজের জন্য আগ্রহী করে তুলবে এবং বিভিন্ন জায়গায় আপনি যখন পোর্টফোলিও সাবমিট করবেন তখন আপনাকে সেই কোম্পানির থেকে চিঠি বা ডাকা হবে।

 

৪.  গ্রাফিক্স ডিজাইন এর মাধ্যমে অনলাইনে আয়

অনলাইনে ইনকাম করার জন্য আরও একটি অন্যতম উপায় হলো গ্রাফিক্স ডিজাইনের মাধ্যমে অনলাইনে আয় করা। আমাদের দেশে পোশাক শিল্পের জন্য অন্যতম বলা হয়ে থাকে যে আমাদের অর্থনীতির অন্যতম একটি চালিকাশক্তি পোশাক শিল্প। 

এই পোশাক শিল্পের বিভিন্ন ধরনের ডিজাইন থেকে শুরু করে বিভিন্ন রকমের কালারিং বিভিন্ন ধরনের নিত্যনতুন জিনিসপত্রের ডিজাইন গুলো যেগুলো আমরা গ্রাফিক্স ডিজাইনারের মাধ্যমে করে থাকি।

বর্তমানে গ্রাফিক্স ডিজাইনারের অনেক বেশি চাহিদা থাকলেও ভালো মানের গ্রাফিক্স ডিজাইনারের অনেক বেশি অভাব। গ্রাফিক্স ডিজাইন কাজ করার জন্য অবশ্য আপনাকে ভালো একটি কম্পিউটার তৈরি করে নিতে হবে। ওয়েব ডিজাইন করার জন্য যে ধরনের রেজুলেশন যুক্ত কম্পিউটার তৈরি করা যায় তার চাইতে দ্বিগুণ পরিমাণ এর রেজুলেশন যুক্ত বা তার চাইতে অনেক ভাল পরিমাণের কম্পিউটার প্রয়োজন হবে। 

ভালো কম্পিউটার এবং ভালো মনিটর ছাড়া আপনি গ্রাফিক্স এর কাজে অনেক বেশী ভাল করতে পারবেন না। যদিও বর্তমানে বিভিন্ন অনলাইন প্লাটফর্ম এর মাধ্যমে অনেক কাজ সহজে করা যায় প্রিমিয়াম সুবিধা গুলো নিয়ে। তারপরেও গ্রাফিক্সের কাজ গুলো নিজের কম্পিউটার বা বিভিন্ন কোম্পানি নিজেদের কম্পিউটারে বসেই করে থাকে। ফ্রিল্যান্সিং কাজের জন্য গ্রাফিক্স ডিজাইন অন্যতম একটি পেশা হিসেবে ভূমিকা পালন করতে পারে বলে আমি মনে করি। গ্রাফিক ডিজাইন শেখার জন্য আপনাকে অবশ্যই কোন একটি কোচিং সেন্টার থেকে ভালো পরিমাণে দক্ষতা অর্জন করে নিতে হবে। 

ইউটিউব থেকে নিজে নিজে শেখা গেলেও এখানে বেশ কিছু তথ্য আপডেট পাওয়া যায় না যেটা আপনি ম্যানুয়ালি কোনটির মাধ্যমে শিখতে পারলে ভালোমতো বুঝতে পারবেন বিষয়গুলো। কোন বিষয়গুলো কিরকম এবং কোন বিষয়গুলো কিভাবে করতে হয় সে সমস্ত বিষয়গুলো অবশ্যই হাতে-কলমে শিখতে হবে।

অনলাইনে ইনকাম

৫.  ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর মাধ্যমে অনলাইনে আয়

ওপরে আমি ওয়েব ডিজাইন সম্পর্কে বলে থাকলেও web-development সম্পর্কে এখন বলার চেষ্টা করব। ওয়েব ডেভেলপমেন্ট অনেক গুরুত্বপূর্ণ অনলাইনে আয় করার জন্য। ওপরে আমি অথচ ডিজাইন সম্পর্কে কিছু বর্ণনা করার চেষ্টা করেছি ওয়াডপ্রেস ডেভেলোপমেন্ট এর মধ্যেই পড়ে থাকে।

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট করার জন্য আপনাকে অবশ্যই ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কে ভালো ধারণা রাখতে হবে। লোকাল ক্লায়েন্ট গুলোর কাজের জন্য আপনাকে সব সময় রেডি থাকতে হবে। 

বর্তমানে আমাদের দেশে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কাজের জন্য যেই পরিমান কাজ গুলো আসে তাদের বেশিরভাগ কাজের মধ্যে অন্যতম হলো ই-কমার্স সাইট তৈরি করা,  বিজনেস ওয়েবসাইট তৈরি করা,  পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট তৈরি করা, মারকেটিং ওয়েবসাইট তৈরি করা,  লিভ জেনারেশন,  গুগোল অ্যাডসেন্সে অ্যাপ্রভাল ওয়েবসাইট তৈরি করা অন্যতম। 

একটি ভাল মানের ওয়েব ডেভেলপারের অনেক বেশি চাহিদা বর্তমান মার্কেটপ্লেসগুলোতে। এসমস্ত কাজগুলো আপনি অনলাইনে ঘরে বসেই অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। তার জন্য অবশ্যই আপনাকে ট্রেনিং নিতে হবে অথবা কোন দক্ষ টিচারের কাছ থেকে শিখে নিতে হবে।

উপরের পাঁচটি বিষয়ে আমি সংক্ষেপে বর্ণনা করার চেষ্টা করেছি আশা করি সবাই বুঝতে পেরেছেন এবং অনলাইনে ইনকাম করার জন্য উপরের পাঁচটি বিষয় গুলোর যেকোনো একটি আপনি শুরু করে দিতে পারেন।  বর্তমানে কোন চাকরির সাথে যুক্ত থাকলে সেটির পাশাপাশি আপনি অনলাইনে ইনকাম শুরু করে দিতে পারেন। 

অনলাইন সেক্টরটা এমন যেখানে আপনি চাইলেও অনেক দ্রুত আয় করতে পারবেন না। অবশ্যই আপনাকে দক্ষতা অর্জন করতে হবে এবং যে কাজের জন্য আপনি মার্কেটপ্লেসগুলোতে মেসেজ করবেন সেই কাজগুলোতে নিজের কিছু দক্ষতা থাকতে হবে। 

 

ক্লায়েন্ট যেন আপনার থেকে কোন তথ্য জানতে চাইলে আপনি অনেক কম সময় এর মাধ্যমেই তার উত্তর দিতে পারেন। এতে করে আপনার কাজের পরিমাণ অনেক বেড়ে যাবে এবং আপনি অনেক কম সময়ের মধ্যেই ভালোমানের একজন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে নাম লেখাতে পারবেন। অনেক ধন্যবাদ মূল্যবান সময় নিয়ে আর্টিকেলটি পড়ার জন্য আশা করব আর্টিকেল সম্পর্কে কোন মন্তব্য থাকলে কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন। 

Leave a Reply

Your email address will not be published.